নিজস্ব প্রতিবেদকঃ

সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুর পৌর শহরের জগন্নাথপুর বাজারের ইকড়ছই (ডহরের পাড়) নামক ভূমিতে থাকা ৫৫ টি টিনশেড দোকানঘর আদালতের নির্দেশে দোকান ভাড়ার আয়-ব্যয়ের হিসাব বিজ্ঞ আদালতে জমা দেয়ার জন্য জগন্নাথপুর থানা পুলিশকে নির্দেশ দিয়েছেন আদালত।
এরই প্রেক্ষিতে জগন্নাথপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোঃ আমিনুল ইসলামের দিক-নির্দেশনায় থানার সেকেন্ড অফিসার এস আই সাব্বির আহসান রিসিভারকৃত দোকান গুলোর ভাড়া ব্যবসায়ীদের কাছ থেকে সংগ্রহ করেন।
এদিকে ব্যবসায়ীরা আদালতের প্রতি সম্মান প্রদর্শন করে জগন্নাথপুর থানা পুলিশের হাতে নগদ দোকান ভাড়া প্রদান করে রসিদ বুঝে নিয়েছেন।
থানার সেকেন্ড অফিসার এস আই সাব্বির আহসান বলেন, সুনামগঞ্জের বিজ্ঞ সিনিয়র সহকারী জজ আদালতের নির্দেশ মোতাবেক বিরোধকৃত দোকানের (ভাড়াটিয়া) ব্যবসায়ীগনকে আদালতের নির্দেশনার কথা বলায়, তারা আদালতের নির্দেশ মোতাবেক রসিদের মাধ্যমে ভাড়া প্রদান করেন। এখন থেকে রসিদের মাধ্যমে তারা জগন্নাথপুর থানা পুলিশের কাছে দোকান ভাড়া প্রদান করবেন।
উত্তোলনকৃত দোকান ভাড়ার টাকা আমরা বিজ্ঞ আদালতে দাখিল করবো।
পুলিশ ও এলাকাবাসী সূত্র জানায়, জগন্নাথপুর পৌর শহরের হবিবপুর গ্রামের বাসিন্দা মোঃ নুর ইসলামের স্ত্রী আছমা খাতুন গং বাদী হয়ে ২০১৩ সালে ছিলিমপুর গ্রামের শফিকুর রহমান গংদের বিবাদী করে আদালতে মামলা দায়ের করেন।
মামলার প্রেক্ষিতে এ বছরের ৩ মার্চ বিজ্ঞ সিনিয়র সহকারী জজ আদালতের রায়ে বিরোধীয় ৫৫ টি টিনসেড দোকানঘর জগন্নাথপুর থানার অনুকূলে রিসিভারের আদেশ প্রদান করা হয়। আদেশে উল্লেখ করা হয়, ইকড়ছই মৌজার সাবেক এস এ দাগ নং ৬৮৫ ও আর এস দাগ নং ৯২৯, ৬৪৯, পরিমান ৩.৩৫ একর ভূমিতে ৫৫ টি দোকানঘর ভাড়া নিলাম দিয়ে মাসিক ভাড়া জগন্নাথপুর থানা পুলিশের মাধ্যমে আদালতে জমা দিতে হবে এবং আদালতকে অবহিত করতে হবে।
পৌর শহরের স্থানীয় বাসিন্দা আব্দুল জব্বার ও তাজনুর সহ উপস্থিত অনেকেই বলেন, আদালতের রিসিভারকৃত ভূমি জনৈক শফিকুল রহমান ও জব্বার মিয়া গংরা তাদের দখলে নিতে উঠে পড়ে লেগেছে।
উক্ত দোকানের (ভাড়াটিয়া) ব্যবসায়ী এলাইছ মিয়া জনৈক জব্বার মিয়াকে ভাড়া না দেয়ায় মারধোর করে তার দোকান তালাবদ্ধ করে রেখেছিল।
পেশীশক্তি দিয়ে কখনো কারো জমি দখলে রাখা যায়না।
বিজ্ঞ আদালত রিসিভারের আদেশ দেওয়ায় নিরিহ ব্যবসায়ীরা এখন নিরাপদে ব্যবসা-বানিজ্য পরিচালনা করতে পারবেন।
তবে দির্ঘদিন পর বিজ্ঞ আদালতের আদেশে বিরোধকৃত ভূমিতে শান্তিপূর্ন পরিবেশে দোকান ভাড়া উত্তোলন করায় থানা পুলিশের শ্রম ও প্রচেষ্টার ভূয়সী প্রশংসাও করেন এলাকাবাসী।
এ ব্যাপারে জগন্নাথপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. আমিনুল ইসলাম এ প্রতিবেদককে বলেন, বিজ্ঞ আদালতের নির্দেশনা মোতাবেক দোকান ভাড়া বিজ্ঞপ্তি প্রদান করা হয়েছে। বিরোধকৃত দোকানে অবস্থানরত কিছু ব্যবসায়ীকে ভাড়া দেওয়া হয়েছে। তালাবদ্ধ কিছু দোকান বিজ্ঞ আদালতের নির্দেশ অনুযায়ী পরবর্তীতে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে। উক্ত দোকানগুলোর ভাড়া উত্তোলন পূর্বক আমরা বিজ্ঞ আদালতে জমা দিবো।