মোঃমহাআলম,তাড়াশ উপজেলা প্রতিনিধিঃ

সিরাজগঞ্জের তাড়াশ উপজেলার দোবিলা ইসলামপুর ডিগ্রি কলেজের নৈশ প্রহরী মোঃ মোজাম্মেল মুন্সিকে (৫৫) মারধরের অভিযোগ উঠেছে। সোমবার (২ অক্টোবর) মোছাঃ রেশমা খাতুনের ছেলে মোঃ সাব্বির হোসেন ও পিতা মোঃ মোবারক হোসেনর ছেলে শাকিলের নেতৃত্বে ৬ থেকে ৭ জন তাকে মারধর করার অভিযোগ পাওয়া যায়।
এলাকার তথ্যসুত্রে,উক্ত প্রতিষ্ঠানের নৈশ প্রহরী মোঃ মোজাম্মেল মুন্সি প্রতিদিনের ন্যায় তার দায়িত্ব পালন রতো অবস্থায় আনুমানিক রাত ৯.৩০ মিনিট ঘটিকায় কলেজে বিবাদী ৬/৭ জন কাউকে কিছু না বলেই ঢুকে পড়েন,কলেজের এক পাশে গিয়ে তারা গাঁজা ও মদ বা মাদক সেবন কালে তাদের কে কলেজ থেকে ত্যাক করতে বলেন কিন্তু তারা তার কথার কোন উত্তর না দিয়ে তাকে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করে এবং সাব্বিরের হাতে একটা দেশীয় অস্ত্রেের দারা তাকে মাথায় আঘাতে গুরুতর ভাবে
আহত হয়ে মাটিতে লুটেপরে যায়।

পরে স্থানীয় লোকজন তাকে উদ্ধার করে তাড়াশ উপজেলা ৫০শয্যা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন। প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে আশঙ্কায়জনক অবস্থাতে তাকে সিরাজগঞ্জ ২৫০ সয্যা সদর হাসপাতালের রেফার করেন।

এ ঘটনায় কলেজের অধ্যাপক মোঃ লুৎফর রকমান তাদের পরামর্শ ক্রমে,নৈশ প্রহরী মোঃ মোজাম্মেল মুন্সির ছেলে মোঃ নাজমুল মুন্সি (লাবু) বাদি হয়ে, মোঃ সাব্বির হোসেন (২০)নেতৃত্ব ৬/৭ জন অজ্ঞাতনামা আসামি করে, তাড়াশ থানায় লিখিত একটা অভিযোগ দায়ের করেন।
অভিযোগ প্রাপ্তির বিষয়টি নিশ্চিত করেন।তাড়াশ থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ শহিদুল ইসলাম। তিনি জানান,অভিযোগ পাওয়ার পরে আমরা অভিযোগ চালিয়ে দুইজন কে আটক করেছি এবং আমাদের অভিযান চলমান আছে।