নবীনগর (ব্রাহ্মণবাড়িয়া) প্রতিনিধি
ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নবীনগরে স্কুলছাত্রীকে উত্ত্যক্ত করার প্রতিবাদ করায় ওই ছাত্রীর বড় ভাই আব্দুল আলিম (১৯) কে রড দিয়ে পিটিয়ে গুরুতর জখম করার অভিযোগ উঠেছে।

সোমবার (২ অক্টোবর) রাতে সলিমগঞ্জ ইউনিয়নের বাড্ডা গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। আহত আলিমকে নবীনগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।

উপজেলার সলিমগঞ্জ ইউনিয়নের বাড্ডা গ্রামের মৃত শাহাবুদ্দিনের দুই ছেলে সাইদুল ইসলাম ও শফিক ইসলামের বিরুদ্ধে এ অভিযোগ উঠেছে।

বৃহস্পতিবার (৫ অক্টোবর) দুপুরে এসব অভিযোগ করেন ভুক্তভোগী পরিবারের সদস্যরা। হামলায় আহত ওই ছাত্রীর ভাই আব্দুল আলিমের মাথায় ৮টি সেলাই পড়েছে।

আহত আলিমের মা-আরফুজা বেগম বলেন, ‘আমার দুই মেয়ে স্থানীয় একটি স্কুলের পড়াশোনা করেন একজন ৭তম শ্রেণির ছাত্রী ও আর একজন ৬ষষ্ঠ শ্রেণীর ছাত্রী। প্রায় এক বছর ধরে স্কুল ও রাস্তায় বের হলে আমার দুই মেয়েকে উত্যক্ত করে একই গ্রামের শাহাবুদ্দিনের ছেলে সাইদুল ইসলাম। ইভটিজিংয়ের বিষয়টি সাইদুলের পরিবারকে অবগত করা হলে এতে সাইদুল ইসলাম ও তার ভাই শফিক ইসলাম ক্ষিপ্ত হয়। গত সোমবার রাতে আলিমের ওপর অতর্কিত হামলা চালায়। এ সময় রড দিয়ে তার মাথাসহ শরীরের বিভিন্ন স্থানে এলোপাথাড়ি পিটিয়ে গুরুতর জখম করে। স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে নবীনগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে। আলিমের মাথায় ৮টি সেলাই দেওয়া হয়েছে। আলিম বর্তমানে নবীনগর সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রয়েছে।

স্কুলছাত্রী বলেন, ‘স্কুলে যাওয়ার সময় প্রতিদিনই সাইদুল আমাকে ইভটিজিং করত। তুলে নিয়ে যাওয়ার হুমকি দিত। রাস্তা দিয়ে স্কুলে যাওয়ার সময় পিছন থেকে সাইদুল আমরা বোনের ভিডিও করে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম টিকটুকে ভাইরাল করে দেয়। বিষয়টি আমার পরিবারকে জানালে ভাই প্রতিবাদ করেন। এতে সাইদুল ইসলাম তার ভাই শফিক ইসলাম ক্ষিপ্ত হয়ে আমার ভাইকে রড দিয়ে পিটিয়ে আহত করেছে।’

অভিযুক্ত সাইদুলের চাচা জয়নাল বলেন, বিষয়টি চেয়ারম্যান সাহেব দায়িত্ব নিয়েছেন, আশা করছি বিষয়টি দ্রুত মীমাংসা হয়ে যাবে।

সলিমগঞ্জ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো. আশিকুর রহমান সোহেল, বলেন, ‘মারপিটের বিষয়টি জেনেছি। সঙ্গে সঙ্গে ওসিকে বিষয়টি অবগত করেছি। আহত আলিম এখনও হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। অবশ্যই এর উপযুক্ত বিচার হবে।’

নবীনগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাহবুব আলম বলেন, ‘এ বিষয়ে এখন পর্যন্ত কোনও অভিযোগ পাইনি। অভিযোগ পেলে তদন্ত করে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’