উচ্চপ্রু মারমা সবুজ, রাজস্হলী রাঙ্গামাটিঃ

রাঙ্গামাটি জেলার রাজস্থলী উপজেলার নাড়ামুখ পাড়ায় নব নির্মিত ধাইম্মারক্ষিতা বৌদ্ধ ধর্মীয় শিক্ষা ও মেডিটেশন সেন্টার শুভ উদ্ধোধন করবেন রাঙ্গামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান অংসুইপ্রু চৌধুরী। ৫ অক্টোবর বৃহস্পতিবার সকাল ১০ ঘঠিকার সময় উপজেলার নাড়ামুখ পাড়ায় উদ্ধোধন অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন আগগা মহা সদ্ধমা জ্যোতিকা ধজ্জা মায়ানমার, সভাপতি বুদ্ধ সাসনা হিতাকারী সংঘ ও চুশাক পাড়া বৌদ্ধ বিহারাধ্যক্ষ ভদন্ত উঃ কিত্তিমা মহাথের, মংবই পাড়া বৌদ্ধ বিহার বিহারাধ্যক্ষসহ বেশ কয়েকটি বৌদ্ধ বিহারের বিহারাধ্যক্ষসহ এসময় উপস্থিত ছিলেন রাজস্থলী উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান উবাচ মারমা,জেলা পরিষদের সদস্য নিউচিং মারমা, উপজেলা নিবার্হী কর্মকর্তা ইউএনও শান্তনু কুমার দাশ, ভাইস চেয়ারম্যান অংনুচিং মারমা, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান উচসিন মারমা, ঘিলাছড়ি ইউপি চেয়ারম্যান রবার্ট ত্রিপুরা, গাইন্দ্যা ইউপি চেয়ারম্যান পুচিংমং মারমা,হেডম্যান ও সাবেক উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান উথিনসিন মারমা, অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষক মংথু মারমা, সাধারণ সম্পাদক মংথুইনু মারমাসহ বুদ্ধ সাসনা হিতাকারী সংঘের সকল সদস্য-সদস্যাবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।মেডিটেশন সেন্টার টি রাঙ্গামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদ ও শ্রদ্ধাবান দায়ক- দায়িকা বৃন্দের অর্থায়নে নির্মিত হয়েছে। নব নির্মিত ধাইম্মারক্ষিতা বৌদ্ধ ধর্মীয় শিক্ষা ও মেডিটেশন সেন্টার শুভ উদ্ধোধন কালে রাঙ্গামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান অংসুইপ্রু চৌধুরী বলেন জননেত্রী শেখ হাসিনা ক্ষমতায় আছে বলেই দেশের সকল সম্প্রদায়ের মানুষ নিজ নিজ ধর্মীয় অনুষ্ঠানাদি পালন করতে পারছে এবং দৃষ্টি নন্দন রুপে ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান গুলো নির্মিত হচ্ছে। তিনি আরো বলেন পার্বত্য চট্টগ্রামে বিভিন্ন সমস্যা থাকালেও তার মধ্যে বিভিন্ন বাঁধা অতিক্রম করে জননেতা দীপংকর তালুকদার এমপি দিক নির্দেশনায় পাহাড়ের আনাচে কানাচে ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান নির্মানসহ ধর্মীয় চর্চাকে আরো বেগমান করতে ধাইম্মারক্ষিতা বৌদ্ধ ধর্মীয় শিক্ষা ও মেডিটেশন সেন্টারের মতো আরো কিছু প্রতিষ্ঠান গড়ে তুলতে উদ্যোগ নেওয়া প্রয়োজন বলে জানান। তাই রাজস্থলী নাড়ামুখ পাড়ায় ধাইম্মারক্ষিতা বৌদ্ধ ধর্মীয় শিক্ষা ও মেডিটেশন সেন্টারটি তিন তালা বিশিষ্ট ভবন নির্মাণের আশ্বাস প্রদান করেন।