নিজস্ব প্রতিবেদকঃ

আসছে আগামী ২১ মে অনুষ্ঠিতব্য সাভার উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে মাত্র ২ জন মনোনয়ন পত্র জমা প্রদান করেছেন।
একজন হলেন আওয়ামীলীগ নেতা ও বর্তমান উপজেলা চেয়ারম্যান ও অপরজন হলেন জাতীয় রাজনীতিবিদ মুফতি সৈয়্যদ মাহাদী হাসান বুলবুল।সাধারণ মানুষ মনে করছেন এবারের সাভার উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে হাড্ডাহাড্ডি লড়াই হবে। তীব্র প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ নির্বাচনে নতুন মুখের বিজয়ী হওয়ার সম্ভাবনা প্রচুর। যদি নিরপেক্ষ নির্বাচন হয়, সাধারণ মানুষ নির্ভয়ে ভোট দিতে পারে, প্রশাসন নিরপেক্ষ থাকে তাহলে সকল দলমত নির্বিশেষে ব্যাপক নিরব ভোট বিপ্লবের মাধ্যমে নতুন মুখের বিজয়ী হওয়ার স্বপ্ন দেখেন আমজনতা।প্রায় ৯ লক্ষ ভোটারের মধ্যে জনমত জরিপে দেখা গেছে, সাধারণ মানুষের ভোটে বিজয়ী হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে নতুন প্রজন্মের জনপ্রিয় জাতীয় রাজনীতিবিদ জননেতা মুফতি সৈয়্যদ মাহাদী হাসান বুলবুল এর । ২০১৪ সালের উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে বিএনপি সমর্থিত প্রার্থী বিজয়ী হয়েছিল ২০১৯ সালে বিনা ভোটে বিজয়ী হন বর্তমান উপজেলা চেয়ারম্যান। বর্তমানে বিরোধী দল গুলো নির্বাচন বর্জন করার ঘোষণা দেওয়ায় আগামী উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে সৎ, যোগ্য ও পরিচ্ছন্ন ইমেজের নেতা বিশিষ্ট ইসলামিক স্কলার মুফতি সৈয়্যদ মাহাদী হাসান বুলবুল এর নাম সাধারণ মানুষ এর মুখে মুখে। ভোট উৎসব এর জন্য মুখিয়ে থাকা সাধারণ ভোটারের অভিমত যোগ্য এই নেতাকে উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান পদে বিজয়ী করবেন।

সাভার উপজেলা পরিষদ এর বর্তমান চেয়ারম্যান জনাব মনজুরুল আলম রাজীব গত ২০১৯ সালের নির্বাচনে বীণা ভোটে বিজয়ী হলেও এবার পরিস্থিতি সম্পুর্ণ বিপরিত। এবার তীব্র প্রতিদ্বন্দ্বিতায় সাধারণ ভোটারের ভোটে বিজয়ী হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে ক্লীন ইমেজের জাতীয় নেতা মুফতি সৈয়্যদ মাহদী হাসান বুলবুলের।সাভার উপজেলার শিমুলিয়া ইউনিয়নের ঐতিহ্যেবাহী পরিবারের সুযোগ্য সন্তান জননেতা মুফতি সৈয়্যদ মাহাদী হাসান বুলবুল আলোচিত রাজনৈতিক দল, বাংলাদেশ তরীকত ফ্রন্ট (বিটিএফ) এর চেয়ারম্যান, সরকার সমর্থিত ১৫ দলীয় প্রগতিশীল ইসলামী জোট এর অন্যতম কো- চেয়ারম্যান এর দায়িত্ব পালন করছেন। তিনি সামাজিক সংগঠন জাতীয় নাগরিক ফাউন্ডেশন এর চেয়ারম্যান, কাজী নজরুল সুফি সোসাইটির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক, বিশিষ্ট শিল্পপতি এম এইচ গ্রুপের চেয়ারম্যান সহ সামাজিক, সাংস্কৃতিক, মানবাধিকার সংগঠনের সাথে সরাসরি যুক্ত জাতীয় এই রাজনীতিবিদ। তিনি আসন্ন উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে বিজয়ী হওয়ার ব্যাপারে শতভাগ আশাবাদ ব্যক্ত করে বলেন আমি দীর্ঘদিন ধরে জাতীয় রাজনীতির সাথে যুক্ত। আমি সাভার উপজেলার বারটি ইউনিয়ন ও পৌরসভার নয়টি ওয়ার্ডের সর্বস্তরের জনগণের সাথে পরামর্শ করে তাদের আগ্রহে উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে প্রার্থী হওয়ার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছি। আশা করছি, যদি প্রশাসন নিরপেক্ষ থাকে, সাধারণ জনগণ নির্ভয়ে ভোট দিতে পারে, তাহলে ভোট উৎসবের মাধ্যমে সাধারণ মেহনতি মানুষ আমাকে বিপুল ভোটে বিজয়ী করবেন।তিনি বিজয়ী হলে এলাকার উন্নয়ন, সাধারণ মানুষে ন্যায় বিচারের সুযোগ পাবেন। তিনি সাধারণ জনগণের দোয়া আন্তরিক সহযোগিতা কামনা করে বলেন আমি শাসক নয় সেবক হয়ে জনগণের মাঝে নিজেকে বিলিয়ে দিতে চাই।