মো: ফরহাদ হোসেন, বগুড়া প্রতিনিধি:

বগুড়ার সারিয়াকান্দি উপজেলায় বড় কুতুবপুর এলাকার মৃত মুনছের প্রামাণিকের ছেলে মো: মহিদুল ইসলাম(৪১) গত ১১জুন মঙ্গলবার আনুমানিক রাত সাড়ে ৯ টায় বাড়ী থেকে বের হয়ে যাওয়ার পর আর বাড়ীতে ফিরে আসে নি। অনেক খোঁজা খুঁজি করে তার সন্ধান না পাওয়ায় নিখোঁজ ব্যক্তির স্ত্রী জনি আকতার ১২ জুন বুধবার বিকেলে সারিয়াকান্দি থানায় একটি নিখোঁজ ডায়েরি করেন। তার শোকে পরিবারের মধ্যে আহাজারি নেমে এসেছে। সরেজমিনে গেলে, নিখোঁজ মহিদুলের মা বরাতন বেওয়া সংবাদ কর্মীদের জানান, হঠাৎ রাত ৮/৯ টার দিকে আমার ছেলের মোবাইলে একটা ফোন আসে তখন কিছু না জানিয়ে তারাতাড়ি আসিতেছি বলে বাড়ী থেকে বের হয়ে যায়। এক দিন পার হয়ে গেলো এখনো তার কোনো সন্ধান পাচ্ছি না। তার মেয়ে মরিয়ম জানান, আমার বাবা রাতের খাবার খাইতে বসেছেন। খাবার শেষ না হতেই কে বা কারা ফোন দেয়। দুধ ভাত না খেয়েই তড়িঘড়ি করে বাড়ী থেকে বের হন। আমি বলি বাবা কোথায় যাচ্ছো শুধু বলে তালতলা যাচ্ছি, এখনি চলে আসবো, এসে দুধ ভাত খাব, আর ফিরে আসেনি। নিখোঁজ মহিদুলের স্ত্রী জনি আকতার বলেন, আমি হঠাৎ অসুস্থ হই, সন্ধ্যার আগেই আমার বাবার বাড়ী চলে যাই। রাতে ফোন পাই আমার স্বামী বাড়ী থেকে বের হয়ে যাওয়ার পর আর বাড়ীতে ফিরে আসেনি। আমি বাড়ী ফিরে আসি এবং বিভিন্ন জায়গায় খোঁজাখুঁজি করি, অনেকের সাথে ফোনে যোগাযোগ করি। এখনো পর্যন্ত আমার স্বামীর কোনো সন্ধান না পাওয়ায় পরিবারের সকলেই চিন্তিত। আমার নিখোঁজ স্বামীকে উদ্ধারের জন্য প্রশাসনের সকল সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের সহোযোগিতা কামনা করছি।
এবিষয়ে সারিয়াকান্দি থানা অফিসার ইনচার্জ (ওসি) রবিউল ইসলাম জানান, নিখোঁজ মহিদুলের স্ত্রী জনি আকতার থানায় একটি নিখোঁজ সাধারণ ডায়েরি করেছেন। থানা প্রশাসনের পক্ষ থেকে নিখোঁজ ব্যক্তিকে উদ্ধারের জন্য এনালগ ও ডিজিটাল পদ্ধতি ব্যবহার করা হচ্ছে এবং দ্রুত উদ্ধারের জন্য আমাদের পক্ষ থেকে সকল প্রচেষ্টা অব্যাহত রয়েছে।

মো: ফরহাদ হোসেন
০১৭৫৫৪২৭৭৯২